February 19, 2009

প্রলাপ ০ (শূন্য) : নিজের শহরে কিছুক্ষন : রাত পর্ব (২২-১১-০৮)

বাস থেকে নামলাম রাতে, বেশ ঠান্ডা পড়ে গেছে। রিকসায় উঠলাম, উঠে সিগ্রেট ধরাতে ধরাতে রিকসাওলা শর্টকাট একটা রাস্তা ধরল।

বছরদশেক আগে, বইয়ের পোকা, বড়বড় চশমা পরা একটা বোকাটে ছেলে এ পথে হেঁটে আসতো মাঝেমাঝে, পরিচিত এক বড়ভাইয়ের সাথে বই বদলকরতে। রাস্তার দু'ধারের ঝকমকে মাথাউঁচুকরে দাঁড়িয়ে থাকা বাড়ীগুলো ঈর্ষা জাগাতো মনে। অসাধারন বৈচিত্রময় ঝকঝকে বাড়ীগুলো! ছোট্ট ছোট্ট ফুলের বাগান আর বড় বড় ফলাদি গাছে সাজানো প্রতিটা বাড়ী! যেন চোখ জুড়ানো সবুজ শাড়ীতে মোড়া তন্বী তরুনী।

বছর দশেক পরে সেই ছেলেটাই হতবাক! নোনাধরা পলেস্তেরা, চটেযাওয়া পুরোনো রঙ, দেওয়ালের গায়ে জন্মানো আগাছা, অশত্থ আর বটের চারা। আধোঁ-আঁধারে ভূতেরবাড়ী যেন সারিসারি! দশবছরে সেই অনন্য সুন্দরী যুবতীরা হয়ে উঠেছে কুৎসিত বৃদ্ধা! মৃতপ্রায় মহীরুহ আর অনাদরে ধংস হয়ে আসা সেই ফুলের বাগান গুলো প্রকট করে তুলেছে ক্ষয়ে যাওয়া ভাবটাকে।

বুক চিরে বেরোয় দীর্ঘশ্বাস। আসেপাশের সাথে নিজেকে মেলায়। দশ বছর আগের ঝকমকে উদ্দাম কিশোর নিজেকে খুঁজে পায় ক্লান্ত-জীর্ণ-ভেঙেপড়া বৃদ্ধের মানসিকতায়, জীবনের কৈশোরকাল থেকে সরাসরি এক লাফে যে উপনীত হয়েছে বৃদ্ধাবস্থায়, মাঝখানের সোনালী তারুন্য আর যৌবনের স্বাদ যে পায়নি।

চোখের কোনে জলের ফোঁটা জন্মায়, আবার শুকিয়েও যায়। সময়ের সাথে পাল্লায় হেরে যাওয়া মানুষের যেটা প্রতিদিনের রুটিন।

(ইহা পাগলের প্রলাপ মাত্র, বাস্তব দুনিয়ার সাথে এই লাইনক'টার কোন সম্পর্ক নেই।)

Disqus for Simple thoughts...