October 18, 2010

হাসি...

বনানীর রাস্তায় অনেকবার চোখাচোখি হয়েছে মেয়েটার সাথে একসময়। যখন রাতের বেলা অফিসের নেটওয়র্ক ডাউন থাকতো, দুজন-তিনজন করে বের হতাম রাতজাগা চায়ের দোকানের খোঁজে।

বন্ধ মার্কেটের এক অন্ধকার কোনে চায়ের দোকানের আশেপাশে স্ট্রীট লাইটের আলোছায়ার ক্যামোফ্লেজে নিজেকে একটু আড়াল-একটু আলোকিত করে দাঁড়িয়ে থাকতো। চোখে আহ্বান নিয়ে, কিছু মুদ্রার বিনিময়ে পুরুষের ক্ষনস্থায়ী "রাতের খেলনা" হবার আশা নিয়ে, যেভাবে এদিকে ওদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে একই উদ্দেশ্যে টহল দিতো আরো কিছু নিশিকণ্যা। >>>


একদিন আগবাড়িয়ে কথা বলতে এসেছিলো, কয়েক'পা সামনে এগিয়ে আমাদের চায়ের কাপ আর সিগ্রেটের শলাকা নিয়ে ঠাট্টারত ছোট্ট দলটার কাছাকাছি। মৃদু স্বরে জানতে চেয়েছিলো, "লাগবে নাকি?"

আমরা মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছিলাম। তবে ঘটনাটা বেশ রসিয়ে আলোচনা হতো পরে, ঐসময়ে উপস্থিত ছিলাম যারা তারে একে অপরকে ঠাট্টা করে বলতাম, তোর কাছেই এসেছিলো।

গত শনিবার অফিস থেকে ফিরতে সন্ধেয় একটা দোকানে ঢুকেছিলাম। সেলস গার্লকে দেখে মনে পড়ে গেলো সেই মেয়েটার কথা।

হয় জমজ বোনের মতই অসম্ভব মিল দুজনের চেহারাতে। নয়তো দু'বছর আগের যে মেয়েটা প্রতিরাতে নিজেকে পুরুষের কাছে রক্তমাংশের যৌন-পুতুল বানাতে বাধ্য হতো, সে আজকে সম্মানজনক একটা পেশায় বাচ্চাদের মনোহর খেলনা পুতুল বিক্রি করছে।

তখনকার হাসিটা ছিলো কামুক আহ্বানের, এখনকার হাসিটা স্বর্গীয়।

(যদি সেই মেয়েটাই হয়ে থাকে।)

Disqus for Simple thoughts...