December 7, 2010

আলো-আঁধারীর স্বপ্ন অথবা স্বর্গের প্রতিচ্ছবি...

সন্ধেয় সে যুবতী,
ঘর সামলানো গোছালো পাকা রাঁধুনি এক পরিপূর্ন যুবতী,
কখনো বা চোখের নীচে হাল্কা কালোর আভাস-
মধ্যবিত্ত হিসেবী জীবনের চিহ্ন ফুটিয়ে তোলে।

রাত বাড়লে ব্যাস্ত যুবতী খাবার টেবিল গোছাতে গোছাতে-
বয়েসটা কমিয়ে ক্রমশঃ তরুনী হতে থাকে।
খাবার টেবিলে নুন-ঝাল-মশলা নিয়ে খুনসুটিও হয়,
একটু আগের যুবতীর মুখমন্ডলের কোনে কোনে-
তখন ফুটে ওঠে তন্বী-তরুনীর চঞ্চলতা।

খাবার পরে শরীরটা ভারী হয়,
শরীরে আলিস্যি আর চোখে ঘুম জমে।
কোনমতে এঁটো বাসন রান্নাঘরে রেখে এসে-
ডিভানের ওপরে শরীরটা ছেড়ে দিয়ে আধশোয়া হয়ে বুকে বালিশ টেনে নিয়ে-
রিমোট হাতে চ্যানেল বদলাতে থাকা তরুনীকে তখন আয়েশী বেড়াল মনে হয়।
পাশে ঘন হয়ে বসে গায়ে হাত বুলোলে,
সে আয়েশে চোখ বন্ধ করে-
ঠিক পোষা বেড়ালটা যেন!

রাত আরো বাড়ে,
দুহাতে পাঁজা কোলে তুলে বিছানার আশ্রয়ে সমর্পন করতেই-
তরুনী মুহুর্তেই দুষ্টুমি ভরা চোখের চপল দৃষ্টি হানা কিশোরী হয়ে ওঠে।
তারপরঃ
আবার সে নিমেষেই হয়ে ওঠে পূর্ন যৌবনা রমনী-
দুটো শরীরের ভালোবাসার সন্ধিতে।

ক্লান্ত ঘর্মাক্ত পুরুষালী বুকে মাথা গুঁজে-
তৃপ্ত রমনী যখন দুহাতে আমাকে আঁকড়ে ধরে ঘুমোয়-
তখন তার ঘুমন্ত মুখে ভেসে ওঠে
বালিকাসুলভ মায়াময় জ্যোতি,
ঘুমন্ত সে মুখে,
রাতের আলো-আঁধারীতে-
আমি আমার স্বর্গ দেখি ....

(টেনেটুনে ছাইপাশ যাই লিখি না কেনো, টাইটেল খুঁজতে গিয়ে ঘাম ছুটে যায়, এবারে এই অপকবিতার শিরোনাম পছন্দ করার দায়িত্ব দিয়েছিলাম দুজন সহ-ব্লগারকে, নাঈম আর শয়তাননাইমের দেওয়া নামটা  "আলো-আঁধারীর স্বপ্ন" আর শয়তানের দেওয়া নামটা "স্বর্গের প্রতিচ্ছবি"। দুটোই ভালো লাগলো বলে দুটো মিলিয়ে একসাথে করে দিলাম। মাইনাস যা দেবার ঐ দুজনকে দেন :)  )

Disqus for Simple thoughts...