January 6, 2011

আমাদের ঘুনে ধরা সমাজঃ যেখানে মৃতার পরিচয়ও শরীর সর্বস্বই থাকে মানুষের চোখে...

আজকে দুপুরে গেছিলাম গ্যারেজে, গাড়ির চিকিৎসায়। ওয়ার্কশপে খানিক থাকবার পর পাশের টি ষ্টলে চা খেতে গিয়ে দেখি সবাই মিলে ছোট ছোট দলে ভাগ, বুড়োরা, ছেলেরা, একপাশে কিছু মহিলা।

আলোচনার মূল, কোন একটা মেয়ে, সে নাকি খুব সুন্দরী ছিলো।
এতই সুন্দরী যে পাড়ার মেয়েরাও ও রাস্তায় হেঁটে গেলে চেয়ে দেখতো, এমনকি বুড়োরাও নাকি ফ্যালফ্যাল করে চেয়ে থাকতো।


কমবয়সী ছেলেদের আড্ডাতে কয়েকবার "একটা মাল ছিলো" টাইপ গুন্জনও শুনেছি। এমনকি সে জিন্স পরলে কেমন হট লাগতো আর কোন রং এর সালোয়ার-কামিজে পরীর মতন তাও।

কিছু বুঝিনি টুকরো কথায়, তাই দোকানীকে প্রশ্ন করেছিলাম, "ঘটনা কি?"

দোকানীও অপূর্ব তন্বী শরীরের প্রসংশা করলো আগে, তারপর জানালো, মেয়েটা ছ'তলার ছাত থেকে লাফ দিয়েছিলো, কারন স্পষ্ট নয়, পরিবারে অশান্তি ছিলো, আবার মেয়েটাও বেশ ডিজু টাইপ ছিলো।

লাফ দিয়ে মরেছে না হাড় ভেঙেছে জানতে চাইলে তখন জানিয়েছিলো, সেটা জানে না।

সন্ধেয় সেই একই দোকানী জানালো, মেয়েটা মরে গেছে। সাথে আবারো আক্ষেপ, রূপের আর তন্বী শরীরের প্রশংসা মেশানো হাহাকার।

তখন উপস্থিত কমবয়েসীদের জটলাটাও আগের সেই কমবয়েসীদের মতই শরীর তত্বে মশগুল।

কারো একবারও ভাবার সময় নেই, ঠিক কোন মুহূর্তে মেয়েটা ছাতে গিয়ে নিজেকে ছুঁড়ে ফেলেছিলো।

ঠিক কতটা ক্ষোভ ছিলো তার দুনিয়ার ওপর, কতটা ঘৃনা ছিলো মানুষের আর নিজের ওপর।

একটা মানুষ মানসিক আর সামাজিক ভাবে কি পরিমান বিদ্ধস্থ হলে আত্মহত্যা করতে যায়, ভালোই জানা আছে আমার।

শুধু ঘৃনা লাগছে এটা ভেবে, আমাদের সমাজে একটা মৃত নারী মৃত্যুর পরেও শরীর সর্বস্বই হয়ে থাকে আমাদের সমাজের চোখে।

Disqus for Simple thoughts...