April 11, 2011

ইরম শর্মিলা চানু, টানা ১০ বছর অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন, মুখে একফোটা পানি না তুলে (Kungo Thang)

দুর্নীতি ইস্যুতে বিপ্লবী জোসে উন্মত্ত ভারতীয় মিডিয়াকে কেউ একজন কি জানিয়ে দেবে এই অসামান্য আশ্চর্য নারীর কথা, যিনি একদিন দুদিন নয়, নব্বই ঘন্টা নয়, টানা ১০ বছর অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন, মুখে একফোটা পানি না তুলে?




 
ভারতেরই উত্তর পুর্বাঞ্চলের একটি রাজ্য মণিপুরের এই নারীর নাম ইরম শর্মিলা চানু। ২০০০ সালের ২ নভেম্বর মণিপুর রাজ্যে ভারতীয় সেনাবাহিনীর একটি গনহত্যার পরে AFSPA নামের একটি কালো আইন প্রত্যাহারের দাবিতে অনশনে বসেন মণিপুরি এই তরুণ কবি। AFSPA বা ‘আর্মড ফোর্সেস স্পেশাল পাওয়ার্স অ্যাক্ট, ১৯৫৮’ আইনটির জোরে মণিপুরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর হত্যা, অত্যাচার, অপহরণ, ধর্ষণ সবকিছুকেই জায়েজ করে রাস্ট্র নামের দৈত্য। ২১ নভেম্বর ২০০০ থেকে তার নাকে প্লাস্টিক নল ঢুকিয়ে তাকে জোর করে তরল খাদ্য খাওয়ানো চলছে, সেই সাথে চলছে তাঁর হাজতবাস। প্রতি বছর তাঁকে ছাড়া হয়, ফের একবার কয়েকদিনের মধ্যেই গ্রেপ্তার করার জন্য।

এই দশ বছরে ভারতীয় চ্যানেল ও প্রিন্ট মিডিয়ায় সেনাবাহিনীর বর্বরতা, শর্মিলা বা তার আন্দোলনের কথা উচ্চারিত হয়নি বললেই চলে। এ বিষয়ে সংখ্যাগুরুর দৃষ্টিভঙ্গি ও মানসিকতার সাথে রাস্ট্রের ব্যাপক মিল দেখা যায়।

আজ এক আন্না হাজারেকে নিয়ে ভারতীয় মিডিয়ার এই হাদুমপাদুম দেখে মনে পড়ছে পনেরো বছর আগের একটি ঘটনার কথা। ভারতীয় আর্মির হাতে মণিপুরি নারী ধর্ষনের বিরুদ্ধে মনিপুরের নারীরা বিবস্ত্র হয়ে "Indian Army Rape Us" ব্যানার নিয়ে যখন প্রতিবাদে ভেঙে পড়ে, তখনও নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে ভারতের মিডিয়া।

আত্মহত্যার প্রচেষ্টার অভিযোগে বারবার গ্রেফতার করা হয় শর্মিলাকে, আন্না হাজারের বেলায় তা হয়নি। টুপি পাঞ্জাবি সজ্জিত ভদ্দরনোক আন্নার সাথে ফানেক-ইনাফি পরা শর্মিলার যে অনেক তফাৎ! এখানে মানুষের গুরুত্ব নির্ধারিত হয় ভোটের অংকে। রাষ্ট্রে বাস করেও রাষ্ট্রহীন সংখ্যালঘু মানুষের দুর্দশার চিত্র সবখানেই তাই একইরকম।

 লেখাঃ Kungo Thang , তার ফেসবুক থেকে নেওয়া

The pseudo warriors behind care to know about someone called Irom Sharmila? Gnani Sankaran 

 ছবিঃ "Indian Army Rape Us" ছবি (কৃতজ্ঞতা - মশিউর রহমান)

Disqus for Simple thoughts...