September 2, 2013

অধিকারের তালিকা: কাগজে মৃত বাস্তবে জীবিত

 অধিকারের তালিকায় মৃত ব্যক্তিদের ঠিকানা ও আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে কথা বলে সমকাল নানা অসঙ্গতি পায়।

অধিকারের তালিকা: কাগজে মৃত বাস্তবে জীবিত
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার সাইজুদ্দিন মাদ্রাসার সহকারী প্রিন্সিপাল লোকমান হোসেন। গত ২০ আগস্ট নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা হোসেনের আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। হেফাজতে ইসলামের জেলা শাখার ১০ নেতাকর্মীও সঙ্গে ছিলেন।

লোকমানের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। এর পর থেকে লোকমান কারাগারেই রয়েছেন। অধিকারের তালিকায় তাকে মৃত দেখানো হয়েছে। তালিকায় ২৯ নম্বর ক্রমিকে তার নাম রয়েছে হাফেজ লোকমান হোসেন, ঠিকানা-বাবুরাইল, নারায়ণগঞ্জ।

সমকালের অনুসন্ধানে জানা যায়, ২০ আগস্টের পর থেকে লোকমান হোসেন নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে রয়েছেন। লোকমানের স্ত্রীর ফুফাতো ভাই শহরের দেওভোগ এলাকার বাসিন্দা আবদুল কাদির শুক্রবার সমকালকে নিশ্চিত করেন, লোকমানের পরিবার বসবাস করে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিঙ্ক রোডের সাইনবোর্ড এলাকায়। লোকমান বর্তমানে কারাবন্দি। অধিকারের তালিকায় তাকে শহরের বাবুরাইল এলাকার বাসিন্দা দেখানো হয়। পত্রিকায় নিহতের তালিকায় নাম দেখে বিস্মিত তারাও।

লোকমানের মতো আরও তিনজনের জীবিত থাকার তথ্য পাওয়া গেছে। অধিকারের তালিকায় মৃত ব্যক্তিদের ঠিকানা ও আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে কথা বলে সমকালও নানা অসঙ্গতি পায়। চট্টগ্রামে নিহত আনোয়ার ও শাহাদাতকেও শাপলা চত্বরে মৃত হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়। তারা দু'জনই ৭ মে চট্টগ্রামে নিহত হন।

আনোয়ার হাটহাজারী মাদ্রাসার ছাত্র, শাহাদাত চট্টগ্রামের মেখল মাদ্রাসার ছাত্র।

Source : Link


Disqus for Simple thoughts...