July 15, 2014

ধোঁয়াসা…

 

মানুষটা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছে। তবে আপ্রান চেষ্টা করছে যাতে চোহারা, আচরনে বা চালচলনে সেটা ফুটে না ওঠে। সে জানে, দিন-রাত ওকে নজরে রাখছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি - ক্যামেরা, বিভিন্ন সেন্সর আরো অনেক কিছু মিলে। নজর এড়াবার উপায় নেই একদমই।

আবারো ভাবছে লোকটা, নতুন আবিষ্কারটা দুনিয়া থেকে ক্ষুধা দুর করে দিতে পারে মাত্র এক দশকেই, সব ধরনের রোগও প্রতিহত হবে সমূলে। সারা দুনিয়ার খাদ্য সমস্যার সমাধান আসলে হয়ে গেছে তার গবেষনার ফলাফলে। শুধু প্রয়োজন একটা দশক।

তবে ওপরের সিদ্ধান্ত হলো, এটাকে পাইপ লাইনে রাখতে হবে অন্ততঃ আরো পঞ্চাশ বছর, ততদিনে ছোটো ছোটো ধাপে আরো মুনাফা ঘরে তুলতে চায় ওপরওলারা। ধাপ ছোটো ছোটো হলেও মুনাফা মোটেই ছোটো নয়।

"আজকের মতন ঘুমোই গিয়ে, কাল দেখা যাবে" - ঘুমোতে গেলো লোকটা।

একটু পরে কয়েকজন মানুষ মিটিং এ বসলো, জরুরী এবং অতি গোপনীয়।
সবাই একমত, ঝুঁকি নেওয়া যাবে না, প্রজেক্ট সুপারভাইজার সিদ্ধান্থীনতায় ভুগছে, ম্যালফাংশন করে বসতে পারে - ফার্ম সেই ঝুঁকি নিতে পারে না। সুপারভাইজার লোকটা আবেগ সামলাতে না পারলে ফার্ম এর বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যাবে সেক্ষেত্রে।

পরদিন মানুষটাকে নিজ গৃহে মৃত পাওয়া গেলো, ডাক্তার সার্টিফিকেট দিয়েছে হার্ট এ্যটাক। পত্রপত্রিকা, টিভিতে শোক ঝরে পড়লো বেশ কিছু দিন, একজন আন্তর্জাতিক মানের বিজ্ঞানীর অকাল প্রয়ানে।

টপ ম্যানেজমেন্ট লোকটার সম্মানে একটা বৃত্তি ঘোষনা করলো, বিশ্বের খাদ্য সমস্যা দূর করতে যারা গবেষনা করতে আগ্রহী তাদের জন্যে।

Disqus for Simple thoughts...