July 17, 2014

১৭-৭-২০১৪

 

ছেলেগুলো সারা বছর বসে থাকে ঈদের অপেক্ষায়। সারাদিন রোজা রেখে মেশিন চালায়, রোজার মাসে কাজের চাপও বাড়ে, রোজই দেখা যায় ঘন্টা দুই-তিন ব্যাগার খেটে যেতে হয় হাতের কাজ ওঠাতে। ওদের চাওয়া বলতে অফিসের খরচে ইফতারটা, রোজার ১৫ পার হবার আগে বোনাসের টাকাটা।

ফার্ম হিসাব করে, এমাসে স্যালারী খচর ডাবল, প্রতি বছরই বোনাসটা টানতে টানতে নিয়ে শেষমেষ কিশ্তিতে শোধ করা হয় ঈদের চার-পাঁচদিন আগে। প্রতিবছরই ওরা শোনে, "ব্যাবসা ভালো না, কি ভাবে যে টাকা দেই!"

ফার্মের মালিক ওয়াশিং মেশিন কেনেন ৩৫০০০ টাকা দিয়ে, ফুড প্রসেসর সেট কেনেন ৭৫০০ টাকা দিয়ে, বেড়াতে যান দেশের বাইরে - তার টাকায় সে কি করবে সেটা একান্তই তার ব্যাপার। তবে মাসকাবারি বেতন, পাওনা উৎসব ভাতা যখন পাঁচশ- একহাজার টাকার কিশ্তিতে দেওয়া হয় - ছেলেগুলো চুপচাপ মনে চাপা ক্ষোভ জমায়।

বাতাসে অভিযোগ ঘোরে, বাতাসেই মেলায়।

Disqus for Simple thoughts...