May 22, 2016

ধর্মীয় সন্ত্রাসের শিকার শ্যামল কান্তি ভক্তকে ঢাকা মেডিক্যালে ঢুকে হত্যার আহ্বান সোসাল মিডিয়াতে!



‘সালাহউদ্দিনের ঘোড়া’ ও ‘নবী-সা. এর কটূক্তির শাস্তি মৃত্যুদণ্ড’ নামের পেজ ইভেন্ট খুলে শ্যামল কান্তিকে হত্যার টার্গেট লক করে দেওয়া হয়েছে এবং ঘোষণা দিয়ে লেখা হয়েছে- ‘শ্যামল কান্তি ভক্ত এখন ঢাকা মেডিক্যালে আছে। কে আছো শ্যামলকে ঢাকা মেডিক্যালের ভেতরই বিজ্ঞানী বানাবে? ঢাকা মেডিক্যালের ভেতর বিজ্ঞানী বানালে লাশ পরিবহনের জন্য সরকার ও পুলিশের সময় ও খরচ অনেক কমে যাবে।’ বিশ্লেষণ করে দেখা যায়- এসব আহ্বান জানানো হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে। পেজগুলো এখনও সচল আছে। Source: Bangla Tribune

ত্যাগী প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে সরাবার ষড়যন্ত্রের কারন বরাদ্দের ৫০ লাখ টাকা স্কুল কমিটির তছরুপ এবং সেটির প্রতিবাদ করেছিলেন শ্যামল কান্তি। তাই তাঁকে সরিয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ফারুকুল এর বোনকে প্রধান শিক্ষক বানানোর খায়েশ হয়েছিলো কমিটির হর্তাকর্তাদের।

এর পর মসজিদের মাইকে অজ্ঞাত পরিচয়(!!!) কিছু লোক ঘোষনা করে শ্যাম কান্তি ভক্ত ধর্ম অবমাননা করেছেন, আর তাই একজন শিক্ষককে কান ধরে ওঠবস করার মতন অমানবিক শাস্তি দেয় এলাকার এমপি, জাতীয় পার্টির সদস্য সেলিম ওসমান! মিডিয়া, সোসাল মিডিয়া, দেশ, বিদেশ থেকে প্রতিবাদ আসতে থাকায় শ্যামলকান্তির পালা ভারী হতে থাকলে এবারে ধর্ম রক্ষার নামে মাঠে নামে হেফাজতে ইসলাম নামক নাচুনে বাঁদরের দল ৭২ ঘন্টার মাঝে শ্যামল কান্তির ফাঁসি চেয়ে।

এর পর আপডেট আরো ভয়ংকর (পাঠক, ওপরেই একটি উদাহরন দেখেছেন), - সোসাল মিডিয়াতে খোলা ঘোষনা দেওয়া হয়েছে।



"সালাউদ্দিনের ঘোড়া" নামক জংগী পেইজটি ১০ টি উপায় জানিয়েছে শ্যামল কান্তিকে খুন করবার যার মাঝে জবাই, কোপ, গুলি, পয়জন এমনকি গ্রেনেড ব্যাবহার করারও আহ্বান আছে এবং ১১ নম্বরে জানতে চাওয়া হচ্ছে অন্য কারো কিছু আইডিয়া আছে কি না শ্যামল কান্তিকে খুন করতে! আরো ভয়ংকর, তারা "প্রয়োজনে বাঁধা দিতে আসা ৫/১০ পুলিশ হত্যা করুন" - বলেও উস্কানী দিচ্ছে!


আবার এই পেইজটির হেডার ইমেজ এ লেখা আছে "Inspire 14 Assassination Operation"!

আহ! শ্যামল কান্তি ভক্ত! কেন যে পড়ে আছেন স্যার! চলে গেলেই তো পারতেন অন্য কোথাও, এদেশটাকে নিজের মনে করে প্রানটা এখন খোয়ানো বাকি আপনার! কথায় কথায় শুনবেন "শালা মালাউন, ভারতের দালাল" আর আপনাকে বরখাস্ত করে ধর্ম রক্ষাকারী সভাপতি ঠিক পালাবেন সেই "মালাউনের দেশ" ভারতে নিরাপদ থাকবার জন্য!

আট বছরের শিশু সুমাইয়াকে খুন করে মসজিদের পাশের ডোবায় ফেলে দিয়েছে নারায়ণগঞ্জের মোল্লাবাড়ি জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন জহিরুল ইসলাম (৩০)। এসময় ধর্ম ঠিকই থাকে, সেলিম ওসমানরা ধর্ম রক্ষায় নামেন না, হেফাজতে ষিলামের নাঁচুনে বাঁদরেরা খামোশ থাকে, সোসাল মিডিয়াতে কেউ এই জানোয়ারের অধম মুয়াজ্জিনকে খুন করতে উস্কানি দেয় না!

সব দেখে একটাই কথা মনে হচ্ছে স্যার, এই দেশটা আপনার নয়, আমরাই আপনাকে দেব না এদেশে থাকবার অধিকার, কারন সব কিছুর পরেও, আপনি একজন "মালাউন"। ব্লগার প্রীতম দাসের খুব আক্ষেপ করে বলা কথাটাই আপনাকে বলছি এখন "এতকিছুর সার সংক্ষেপ হচ্ছে - শ্যামল, ইন্ডিয়ায় চলে যাও।"

Disqus for Simple thoughts...